বাংলাদেশ

মাকে বাঁচাতে গিয়ে বাবার হাতে ছেলে খুন

এবার মাকে বাঁচাতে গিয়ে বাবার হাতে খুন হলো ছেলে।এই ঘটনাটি ঘটেছে বরগুনা জেলার তালতলি উপজেলার কালীবাড়ি গ্রামে।

 

আজ ২৩ জুন বুধবার সকাল ১০ তার দিকে এই ঘটনাটি ঘটে।নিহত ছেলেটির নাম সুমন।বয়স ১৪।ছেলেটি  তালতলী সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণিতে পড়ে।

 

 

পুলিশ জানতে চাইলে গ্রামবাসীরা জানান,নিহত সুমনের বাবা আসাদুল খাঁনের সাথে সুমনের মা সেলিনা বেগমের  পারিবারিক কারণে অনেকদিন যাবত ঝগড়া চলতে থাকে।আজ সকাল থেকেই তারা স্বামী স্ত্রী বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তর্কাতর্কি করছিল।একপর্যায়ে আসাদুল খাঁন তার  স্ত্রীকে মারধর করতে থাকে।এই সময় তাদের ছেলে ঘরের বাইরে ছিল।সকাল ১০ টার দিকে ছেলে ঘরে ঢুকে দেখে মাকে তার বাবা ধারালো ছুরি দিয়ে কোপাতে যাচ্ছে।এমন সময় ছেলে বাবার হাত থেকে মাকে বাঁচাতে যায়।ঠিক ঐ সময় ধারালো অস্ত্রের আঘাত স্ত্রীর গায়ে না লেগে সন্তানের গায়ে লাগে।এই অবস্থায় ঘাতক বাবা নিজেই সন্তানকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যায়।হাসপাতালে নেওয়া মাত্রই ডাক্তার সুমনকে মৃত ঘোষণা করে।ছেলের মৃত্যুর সংবাদ পাওয়া মাত্রই বাবা সেখান থেকে পালিয়ে যায়।

 

 

স্থানীয় হাসপাতালের ডাক্তার বলেন, সুমনকে হাসপাতালে আনার আগেই  সে মারা গেছে।

 

এদিকে বাবার হাতে নৃশংস ভাবে ছেলের খুন হওয়া ঘটনায় গ্রামের লোকজন শোক প্রকাশ করেছেন। নিহত সুমনের সহপাঠীরা এবং গ্রামবাসীরা ঘাতক বাবার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন। 

 

তালতলী থানার ওসি মো. কামরুজ্জামান মিয়া বলেন, খবর পেয়েই আমরা অতি শীঘ্রই ঘটনাস্থল  পরিদর্শন করেছি। ঘাতক বাবাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এখন  সুমনের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বরগুনা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button